ই-নলেজ এ আপনাকে সুস্বাগতম।এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং ই-নলেজ এর অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন।বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...।

14 বার প্রদর্শিত
08 জানুয়ারি "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (গুনী) (448 পয়েন্ট)  
প্রশ্নঃ 168 টি, উত্তরঃ 79 টি এবং মন্তব্যঃ 2 টি।
14 বার প্রদর্শিত

3 উত্তর

5 পছন্দ 0 অপছন্দ
10 জানুয়ারি উত্তর প্রদান করেছেন (প্রতিভাবান) (9,328 পয়েন্ট)  
কালোজিরা: উপকারীতা ও গুনাগুন বিচারে কালোজিরা কে বলা হয় সর্বরোগের মহাঔষধ।। কালোজিরা হজমশক্তি বৃদ্ধি করে, পেটফাপা ভাব দূর করে, ব্রেইন পরিষ্কার রাখে, রুচি বৃদ্ধ করে, চুল পড়া বন্ধ করে এবং চুলের গোড়া শক্ত করে ইত্যাদি ছাড়াও আরো অনেক বিভিন্ন কাজে লাগে।
জামিনুল রেজা ওরফে জামি আহমাদ জ্ঞানপিপাসু ও সৌখিন একজন সাধারণ মনের মানুষ। পছন্দ করেন নিঃস্বার্থ ভাবে অপরকে সাহায্য করতে।নিজেকে জানা ও অপরকে জানানোর অদম্য ইচ্ছার প্রয়াসে অনেক টাই জড়িয়ে গেছেন ই-নলেজ এর সাথে।বর্তমানে তিনি দশম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত।জ্ঞান বিনিময়ের এই বিশাল প্লাটফর্মে নিরন্তর প্রচেষ্টায় জ্ঞান অন্বেষণে কাজ করে যাচ্ছেন একজন সমন্বয়ক হিসেবে।
3 পছন্দ 0 অপছন্দ
10 জানুয়ারি উত্তর প্রদান করেছেন (বিশারদ) (1,208 পয়েন্ট)  

কালোজিরার বহুমাত্রিক গুণাগুণ রয়েছে যা নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো : ১. রোগ প্রতিরোধ : কালোজিরা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। নিয়মিত কালোজিরা খেলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সতেজ থাকে। এটি যেকোনো জীবানুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে দেহকে প্রস্তুত করে তোলে এবং সার্বিকভাবে স্বাস্থ্যের উন্নতি করে।

২. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ: কালোজিরা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীদের রক্তের গ্লুকোজ কমিয়ে দেয়। ফলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে।

৩. রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ : কালোজিরা নিম্ন রক্তচাপ বৃদ্ধি করে স্বাভাবিক করতে সাহায্য করে। পাশাপাশি দেহের কলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণ করে উচ্চ রক্তচাপ হ্রাস করে শরীরে রক্তচাপের স্বাভাবিক মাত্রা বজায় রাখে।

৪. যৌনক্ষমতা বৃদ্ধিকরণে : কালোজিরা নারী-পুরুষ উভয়ের যৌনক্ষমতা বৃদ্ধি করে। প্রতিদিন খাবারের সঙ্গে কালোজিরা খেলে পুরুষের স্পার্ম সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। এটি পুরুষত্বহীনতা থেকে মুক্তির সম্ভাবনাও তৈরি করে।

৫. স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি : নিয়মিত কালোজিরা খেলে দেহে রক্ত সঞ্চালন ঠিকমতো হয়। এতে করে মস্তিস্কে রক্ত সঞ্চালনের বৃদ্ধি ঘটে; যা আমাদের স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

৬. হাঁপানী রোগ উপশমে : হাঁপানী বা শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা সমাধানে কালোজিরা দারুণ কাজ করে। প্রতিদিন কালোজিরার ভর্তা খেলে হাঁপানি বা শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা উপশম হয়।

৭. পিঠে ব্যথা দূরীকরণে : কালোজিরার থেকে তৈরি তেল আমাদের দেহে বাসা বাঁধা দীর্ঘমেয়াদী রিউমেটিক এবং পিঠে ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়া সাধারণভাবে কালোজিরা খেলেও অনেক উপকার পাওয়া যায়।

৮. শিশুর দৈহিক ও মানসিক বৃদ্ধিতে : নিয়মিত কালোজিরা খাওয়ালে দ্রুত শিশুর দৈহিক ও মানসিক বৃদ্ধি ঘটে। কালোজিরা শিশুর মস্তিষ্কের সুস্থতা এবং স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতেও অনেক কাজ করে।

নাহিদ হোসেন মিতুল একজন জ্ঞান পিপাসু ও ধার্মিক ব্যাক্তি। বর্তমানে তিনি একজন ছাত্র।জ্ঞান অর্জন ও মানুষকে সাহায্য করাকেই বড় মনে করেন।তিনি তার চারপাশের বড় থেকে ছোট জিনিসের মধ্যে জ্ঞান অর্জন করেন।ইন্টারনেটের জগতে যুক্ত হয়েছেন শিক্ষামূলক ওয়েবসাইট ই- নলেজে।বিশাল সদস্যের এই পরিবারে তিনি "সম্পাদক" পদে নিযুক্ত আছেন।
3 পছন্দ 0 অপছন্দ
10 জানুয়ারি উত্তর প্রদান করেছেন (গুনী) (340 পয়েন্ট)  
10 জানুয়ারি সম্পাদিত করেছেন

কালোজিরার গুণাগুণঃ

খাবারে একটু ভিন্নধর্মী স্বাদ আনাতেই সীমাবদ্ধ নয় কালোজিরার ব্যবহার। 

আয়ুর্বেদিক ও কবিরাজি চিকিৎসাতে কালোজিরার অনেক ব্যবহার হয়। কালোজিরার বীজ থেকে তেল পাওয়া যায়, যা আমাদের শরীরের জন্য খুব উপকারী। এতে আছে ফসফেট, আয়রন, ফসফরাস।


 এছাড়াও কালোজিরা আমাদের দেহকে রক্ষা করে অনেক ধরনের রোগের হাত থেকে। চলুন তবে দেখে নেয়া যাক প্রতিদিন কালোজিরা খাওয়ার উপকারিতা-কালোজিরা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে। 


নিয়মিত কালোজিরা খেলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সতেজ থাকে। এতে করে যে কোন জীবানুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে দেহকে প্রস্তুত করে তোলে এবং সার্বিকভাবে স্বস্থ্যের উন্নতি করে।


কালোজিরা ডায়াবেটিক রোগীদের রক্তের গ্লুকোজ কমিয়ে দেয়। এতে করে কালোজিরা ডায়াবেটিক নিয়ন্ত্রনে রাখতে সহায়তা করে।কালোজিরা নিম্নরক্তচাপকে বৃদ্ধি করে স্বাভাবিক করতে সাহায্য করে। এবং দেহের কলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণ করে উচ্চরক্ত চাপ হ্রাস করে শরীরে রক্ত চাপ এর স্বাভাবিক মাত্রা বজায় রাখে।


কালোজিরা খেলে আমাদের দেহে রক্ত সঞ্চালন ঠিকমতো হত। এতে করে মস্তিস্কের রক্ত সঞ্চলন বৃদ্ধির হয়। যা আমাদের স্মৃতি শক্তি বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।


যারা হাঁপানি বা শ্বাসকষ্ট জনিত সমসসায় ভুগে থাকেন তাদের জন্য কালোজিরা অনেক বেশি উপকারী। প্রতিদিন কালোজিরার ভর্তা রাখুন খাদ্য তালিকায়। কালোজিরা হাঁপানি বা শ্বাস কষ্টজনিত সমস্যা উপশম হবে।


কালোজিরার থেকে যে তেল বের করা হয় তা আমাদের দেহে বাসা বাঁধা দীর্ঘমেয়াদী রিউমেটিক এবং পিঠে ব্যথা কমাতে বেশ সাহায্য করে। এছাড়াও সাধারণভাবে কালোজিরা খেলেও অনেক উপকার পাওয়া যায়।


শিশুদের কালোজিরা খাওয়ানোর অভ্যাস করলে দ্রুত শিশুর দৈহিক ও মানসিক বৃদ্ধি ঘটে। শিশুর মস্তিষ্কের সুস্থতা এবং স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতেও অনেক কাজ করে কালোজিরা। 

সংশ্লিষ্ট প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
1
08 জানুয়ারি "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন FM (গুনী) (448 পয়েন্ট)  
3 টি উত্তর
2
08 জানুয়ারি "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন FM (গুনী) (448 পয়েন্ট)  
3 টি উত্তর
3
08 জানুয়ারি "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন FM (গুনী) (448 পয়েন্ট)  
2 টি উত্তর
4
09 সেপ্টেম্বর 2019 "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আব্দুল্লাহ আল মাসুদ (বিশারদ) (2,355 পয়েন্ট)  
2 টি উত্তর
5
15 জানুয়ারি "খাদ্য ও পানীয়" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল  

9,753 টি প্রশ্ন

10,436 টি উত্তর

1,029 টি মন্তব্য

285 জন সদস্য

ডাউনলোড অ্যাপ

ই-নলেজ বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম।কমিউনিটির এই প্ল্যাটফর্মের সদস্যের মাধ্যমে আপনার প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান পেতে পারেন পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন।মূলত এটি বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্যে।

ফেসবুক বন্ধুদের আমন্ত্রণ

আপনার ফেসবুক বন্ধুদের ই-নলেজ এ আমন্ত্রণ জানান

ই-নলেজকে Rate ও Review দিন!

6 জন অনলাইনে আছেন
0 জন সদস্য 6 জন অথিতি
আজকের ভিজিটর : 5450
গতকাল ছিলেন : 5913
সর্বমোট : 824681
  1. জামিনুল রেজা

    532 পয়েন্ট

    85 টি উত্তর

    5 মন্তব্য

    53 টি প্রশ্ন

  2. Muminul Islam

    336 পয়েন্ট

    21 টি উত্তর

    6 মন্তব্য

    32 টি প্রশ্ন

  3. Md. Asif Ali

    145 পয়েন্ট

    32 টি উত্তর

    1 মন্তব্য

    31 টি প্রশ্ন

  4. Tanzith

    59 পয়েন্ট

    4 টি উত্তর

    3 মন্তব্য

    0 টি প্রশ্ন

  5. হিজবুল্লাহ

    50 পয়েন্ট

    10 টি উত্তর

    0 মন্তব্য

    10 টি প্রশ্ন

ই-নলেজে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন,উত্তর ও মন্তব্যের দায়ভার শুধুমাত্র প্রকাশকারী সদস্যের । 
...