ই-নলেজ এ আপনাকে সুস্বাগতম।এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং ই-নলেজ এর অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন।বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...।
menu search
person

"সাধারণ" বিভাগে করেছেন (বিশারদ) (3,306 পয়েন্ট)  
বিভাগ পূনঃনির্ধারিত করেছেন
130 বার প্রদর্শিত
বন্ধ

1 উত্তর

thumb_up_alt 4 পছন্দ thumb_down_alt 0 অপছন্দ
করেছেন (বিশারদ) (3,306 পয়েন্ট)  
নির্বাচিত করেছেন
 
done_all

এক হাজার টাকার নোটের নিরাপত্তাবৈশিষ্ট্য ১৩টি 

এবং ৫০০ টাকার প্রথম ১১টি 

ও ১০০০ টাকার নোটের ১৩টির সবগুলি।

এরা হলো - 

  • ১) রং পরিবর্তনশীল হলোগ্রাফিক সুতা 
  • ২) অসমতল ছাপ 
  • ৩) রং পরিবর্তনশীল কালি 
  • ৪) উভয়দিক থেকে দেখা 
  • ৫) অন্ধদের জন্য বিন্দু 
  • ৬) জলছাপ 
  • ৭) এপিঠ-ওপিঠ ছাপা 
  • ৮) অতি ছোট আকারের লেখা
  • ৯) লুকানো ছাপা 
  • ১০) সীমানাবর্জিত ছাপা 
  • ১১) পশ্চাত্পট মুদ্রণ 
  • ১২) নম্বর 
  • ১৩) ইরিডিসেন্ট ও স্ট্রাইপ |

তো চলুন আরো কিছু বিস্তারিতভাবে আসল আর নকল নোটের মধ্যে পার্থক্য দেখে নেই


নকল টাকার নোট সাধারণ কাগজে তৈরি হয় বলে নরম ধরনের নোট হয়। 

আসল টাকা বিশেষ ধরণের কাগজে তৈরি তাই একটু শক্ত হয়। 

নকল নোটে জলছাপ অস্পষ্ট ও নিম্নমানের হয়। 

আসল নোটে ‘বাঘের মাথা’ এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘মনোগ্রাম’ এর স্পষ্ট জলছাপ রয়েছে। 

উভয়ই আলোর বিপরীতে দেখা যাবে। 

আসল টাকা বিশেষ নিরাপত্তামূলক কালিতে ছাপা হয়। এই কালি হাত দিয়ে স্পর্শ করলে উঁচু-নিচু অনুভূত হয়। 

নকল নোটে হাতের স্পর্শে উঁচু-নিচু বা অসমতল মনে হবে না।

আসল নোটে টাকার অঙ্ক লিখতে হলোগ্রাম কালি ব্যবহার করা হয়েছে। টাকা নাড়াচাড়া করলে টাকার অঙ্কের রঙ পরিবর্তন হয়। লেখার ওপর সরাসরি তাকালে গাঢ় গোলাপি বা লালচে এবং তির্যকভাবে তাকালে সবুজাভ সোনালি রং দেখা যাবে। 

নকল বা জাল নোটে রঙ পরিবর্তন দেখা যায় না। ম্যাগনিফাইং গ্লাস দিয়ে দেখলে স্পষ্ট দেখা যায় টাকার গায়ে ‘Bangladesh Bank’ লেখাটি অতি ক্ষুদ্র আকারে যা খালি চোখে দেখা যায় না। নকল নোট ম্যাগনিফাইং গ্লাস দিয়ে দেখলে শুধু একটা রেখা দেখা যাবে। 

আসল নোটে চার মিলিমিটার চওড়া নিরাপত্তা সুতাটি সামনে-পেছনে সেলাই করার মতো রয়েছে। কিন্তু পেছনের দিকে সুতাটি কাগজের ভেতরে অবস্থিত। নোটটি নাড়াচাড়া করলে সুতায় বিভিন্ন রং দেখা যাবে। আলোর দিকে ধরলে উভয় দিক থেকে সুতাটিতে ‘বাংলাদেশ’ লেখা শব্দটি উল্টা ও সোজাভাবে পড়া যাবে। 

নকল নোটে এতো নিখুঁত ভাবে সুতাটি দিতে পারেনা। 

আসল নোটের বাম কিনারে বিশেষ ডিজাইন ছাপানো। নোটটি মোড়ানো হলে ডান কিনারের নকশার সাথে মিলে পূর্ণাঙ্গ ডিজাইন হবে। 

নকল নোটে এ রকম মেলানো বেশ কঠিন।


মোঃ আশরাফ উদ্দিন খান ই-নলেজ ডট কমের প্রতিষ্ঠাতা। খানিকটা অস্তিত্বের তাগিদে আর দেশের জন্য বাংলা ভাষায় কিছু করার উদ্যোগে ২০১৯ সালে তার হাত ধরেই যাত্রা শুরু করে ই-নলেজ ডট কম। বর্তমানে(২০২১) তিনি ৯ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত। আপনাদের সকলের নিকট দোয়াপ্রার্থী।

আশা করি ই-নলেজের মাধ্যমে আপনি উপকৃত হয়েছেন!আর কোন প্রশ্ন থাকলে, ই-নলেজ এর এক্সপার্টদের প্রশ্ন করে  জানাবেন, ই-নলেজ রয়েছে সবসময় আপনার পাশে।


ই-নলেজ ডট কম, Enolez ask, Best Question and answer site Enolez , সেরা প্রশ্নোত্তরভিত্তিক কমিউনিটি ই-নলেজ!

সংশ্লিষ্ট প্রশ্নগুচ্ছ

30 সেপ্টেম্বর 2020 "বিজ্ঞান ও প্রকৌশল" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Anisa Islam (বিশারদ) (1,745 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
20 নভেম্বর 2019 "সাধারণ জ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md Mostafa Sk (গুণী) (178 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
20 অক্টোবর 2020 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Anisa Islam (বিশারদ) (1,745 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
05 নভেম্বর 2019 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md Mostafa Sk (গুণী) (178 পয়েন্ট)  
2 টি উত্তর
06 সেপ্টেম্বর 2019 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Sumonmahamud (নবীন) (76 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
ই-নলেজ বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য ওয়েবসাইট। এখানে আপনি প্রশ্ন-উত্তর করার মাধ্যমে নিজের সমস্যার সমাধানের পাশাপাশি দিতে পারেন অন্যদের সমস্যার নির্ভরযোগ্য সমাধান! বিভিন্ন ব্যক্তিগত সমস্যা, পড়ালেখা, ধর্মীয় ব্যাখ্যা, বিজ্ঞান বিষয়ক, সাধারণ জ্ঞান, ইন্টারনেট, দৈনন্দিন নানান সমস্যা সহ সকল বিষয়ে প্রশ্ন-উত্তর করতে পারবেন! প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে বাংলা ভাষায় উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্য!
তাই আজই যুক্ত হোন ই-নলেজে আর বাড়িয়ে দিন আপনার জ্ঞানের গভীরতা...!
DMCA.com Protection Status


...